ঘোষণা:
বাংলাদেশ সম্মিলিত সাংবাদিক ফোরামের আদর্শ ও উদ্দেশ্য

বাংলাদেশ সম্মিলিত সাংবাদিক ফোরামের আদর্শ ও উদ্দেশ্য

১. সাংবাদিকতা পেশায় নিয়োজিত সকল সদস্যের পেশাগত মান ও দক্ষতা উন্নয়ন ।

২. সাংবাদিকতা ও সাংবাদিকদের স্বার্থ সংরক্ষণ।

৩. সদস্যদের মজুরী ও চাকরী সংক্রান্ত স্বার্থ সংরক্ষণ এবং চাকরী সংক্রান্ত বিরোধের ক্ষেত্রে সদস্যদের সাহায্য করা।

৪. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে সদস্যদের চাকরি পেতে সাহায্য করা।

৫. নির্বাহী পরিষদের বিবেচনা মতে, কোন সাংবাদিক পেশাগত কাজ করতে গিয়ে অসুবিধায় পড়লে তাকে সাহায্য করা।

৬. সাংবাদিকদের পেশাগত দায়িত্ব পালনে যথাযথ সুবিধার দিকে নজর রাখা।

৭.সংবাদপত্র ও সাংবাদিকতার স্বাধীনতা অক্ষুন্ন রাখা এবং সেজন্যে সংগ্রাম অব্যাহত রাখা।

৮. সদস্যদের মধ্যে ঐক্য ও সৌহার্দ্যমূলক সম্পর্ক বজায় রাখা।

৯.পারস্পরিক স্বার্থ সংরক্ষণ ও অর্থনৈতিক কল্যাণসাধনের উদ্দেশ্যে (বিএসএসএফ) তার সদস্যদের উন্নতমানের কর্মদক্ষতা ও পেশাগত আচরণ অক্ষুন্ন রাখবে।

১০. কোন সদস্যের এমন কোন কিছু করা চলবে না, যাতে তার নিজের, তার সংগঠনের, যে সংবাদপত্র বা সংবাদ মাধ্যমে তিনি কাজ করেন তার বা তার পেশার সুনাম ক্ষুন্ন হয়। তাকে তার সংগঠনের নিয়মকানুন পড়ে দেখতে হবে এবং কোনক্রমেই তার( বিএসএসএফ) স্বার্থের বিরুদ্ধাচরণ করা যাবে না।

১১. সততার সঙ্গে সংবাদ তথ্যাদি সংগ্রহ ও প্রকাশ করার স্বাধীনতা এবং ন্যায়সঙ্গত মন্তব্য ও সমালোচনা করার অধিকার হচ্ছে এমন নীতি, যা প্রত্যেক সাংবাদিককে রক্ষা করতে হবে। তাকে পেশাগত গোপনীয়তা রক্ষা করতে হবে এবং খবরের উৎস ও গোপন দলিলসংক্রান্ত সমস্ত প্রয়োজনীয় গোপনীয়তার মর্যাদা (জার্নালিষ্টিক ইথিক্স) রক্ষা করতে হবে।

১২. সাংবাদিককে পত্রিকা বা সংবাদ মাধ্যমে তার প্রদত্ত সংবাদ প্রচার ও প্রকাশের বিষয়ে ব্যক্তিগত ভাবে দায়িত্ব নিতে হবে। এরুপ কোন সংবাদ বা ব্যক্তিগত স্খলনরে দায় কোনরুপইে সংগঠনের (বিএসএসএফ) উপর বর্তাবেনা। মিথ্যা খবর বা দলিল সরবরাহ করা কিংবা সত্যকে বিকৃত বা তার অপব্যাখ্যা করা যাবে না। এ ধরণরে কোন অপসাংবাদকিতায় জড়তি থাকার প্রমাণ পেলে বা এই কারণে দন্ডিত হলে সংগঠনের সদস্যপদ আপনাআপনি বাতলি হয়ে যাবে।

১৩. বাংলাদেশের বিভিন্ন আঞ্চলিক ও সামাজিক সমস্যা এবং বঞ্চনা গুলো অনুসন্ধানের মাধ্যমে তুলে এনে কেন্দ্রীয় ভাবে সমাধানে কার্যকর ভূমিকা রাখা।সমস্যার পাশাপাশি এলাকার সম্ভাবনা গুলো চিহ্নিত করতে এবং এগুলো জনগনের সামনে তুলে ধরার প্রয়োজনে সাংগঠনিক কর্মসূচি গ্রহণ এবং বাস্তবায়নে কর্মশালা, সেমিনার ও সফর কর্মসূচি আয়োজনের মাধ্যমে সরকারের নজরে আনতে কার্যকর ভূমিকা রাখা।

১৪. বিভিন্ন গণমাধ্যমের বিদ্যমান সমস্যা চিহ্নিত করে তা গণমাধ্যমে প্রকাশ এবং জনসম্মুখে প্রচারের ব্যবস্থা করা এবং সরকারের নজরে আনতে কার্যকর ভূমিকা রাখা।

১৫. সর্বোপরি নিজেদের কল্যাণের পাশাপাশি দেশ ও মানবতার কল্যাণে বিভিন্ন সামাজিক ও মানবিক সহায়তামূলক কর্মকান্ড পরিচালনা করা।